Insights into simplifying train travel

ভারতের ৫ টি অদ্বিতীয় গীর্জা

ভারতে অনেক ধর্মের অবস্থান | যদিও খুবই অল্প সংখ্যক লোক খ্রীষ্টান ধর্ম কে মেনে চলে তাও এখানে অনেক অসাধারণ গীর্জা আছে | বেশির ভাগ গীর্জার উত্স হচ্ছে ভারতের ঔপনিবেশিক শাসন | আপনি ভারতের যে কোন শহরে যান সেখানে একটা না একটা গীর্জা পাবেনই| এখানে আমরা ভারতের অনন্য এবং অসাধারণ গীর্জা সম্পর্কে কথা বলা হবে |

Rosary-Church-Hassan

১. রোসারি গীর্জা , হাসান , কর্নাটক নিমজ্জিত গীর্জা নামে পরিচিত এই গীর্জার নির্মান ১৮৬০ তে ফরাসি মিশনারিজরা করেন | হেমবতী নদীর তীরে অবস্থিত এই গীর্জার নির্মান গতানুগতিক ইট এবং চুনসুরকির মিশ্রণ দিয়ে হয় এবং সেই সঙ্গে এতে গুর এবং ডিম মেশানো হয় | কিন্তু এর এক দশক পরে গরুর বাধের নির্মান করা হয় | প্রত্যেক বর্ষার পর যখন বাধ কাজ করা শুরু করে তখন এলাকার জলের মাত্র বেড়ে যায় এবং গীর্জাটি জলে ডুবে যায় | বর্ষাকালে শুধুমাত্র এই গির্জার চূড়া দেখা যায় |

Basilica-of-Bom-Jesus-Goa

২. বাসিলিকা অফ বম যিশু , বায়ন্গুইনিম , গোয়া: এই গীর্জাটি বিখ্যাত হচ্ছে কারণ এখানে সেন্ট ফ্রান্সিস জেভিয়ারের শরীর রয়েছে , যিনি একজন একনিষ্ঠ স্প্যানিশ ধর্মপ্রচারক ছিলেন , যিনি গোয়াতে ঔপনিবেশিক শাসনের সময় খ্রিস্টধর্ম ছড়ান | এই গীর্জার স্থাপনা ২৪ নভেম্বর , ১৫৯৪ এ করা হয় | এই গীর্জা নিবেদিত হচ্ছে ” বম যিশু” বা শিশু যিশুর প্রতি | যখন সেন্ট ফ্রান্সিস জেভিয়ারের মৃত্যু হয় তখন তার শরীর এখানে আনা হয় এবং একটি কাস্কেতে রাখা হয় | সারা দুনিয়ার খ্রিস্টান ভক্তরা এখানে আসেন এক দশকে এক বার তার পবিত্র স্মরণচিহ্ন দেখার জন্য |

Our-Lady-of-Dolours-Church-Trichur

৩. আওয়ার লেডি অফ ডলোরস গীর্জা , ত্রিচুর , কেরালা : আপনারা অনেকে জানেন না যে এটি ভারতের সব থেকে বড় এবং এশিয়ার তৃতীয় লম্বা গীর্জা হচ্ছে | ১৮১৪ তে সায়রো – মালাবার (মালাবারে অবস্থিত সিরিয়ান)কাথলিচ্স দ্বারা তৈরী এই গীর্জার পুনর্নির্মাণ ১৯২৯ এ করা হয় | এই গীর্জাতে দুতলাতে করিডোর আছে এবং সুন্দর সাজ সজ্জার সঙ্গে ১১তি অল্টার আছে |

Medak-Cathedral-Medak-Telangana

৪. মেডাক ক্যাথেড্রাল , মেডাক , তেলানগানা : এটি এশিয়ার সব থেকে বিশাল ডায়োসিস গীর্জা হচ্ছে এবং বিশ্বে দ্বিতীয় হচ্ছে (শুধুমাত্র ভ্যাটিকানের পরে) | এই ক্যাথেড্রাল ২০০ ফিট লম্বা এবং ১০০ ফিট চওড়া হচ্ছে | এটি ২৫ ডিসেম্বর ১৯২৪ এ ব্রিটিশ বেস্লেয়ান মেথডিস্ট দ্বারা স্থাপিত হয় এবং এটি ৬তি আলাদা রঙের মোজাইক টাইলস দিয়ে সজ্জিত করা হয় যা ব্রিটেন থেকে আনান হয় | এই গীর্জার ছাদ সাউন্ড প্রুফ হচ্ছে এবং এখানে চিত্তাকর্ষক ভল্টিং শৈলী রয়েছে |

Moravian-Church-Leh-Jammu-Kashmir

৫. মোরাভিয়ান গীর্জা, লেহ, জম্মু ও কাশ্মীর : এটা “ভারতের সর্বোচ্চ গীর্জা” হিসাবে পরিচিত কারণ এটি ১১০০০ ফুট এ অবস্থিত | ১৮৮৫ এ মোরাভিয়ান মিশনারিদের দ্বারা স্থাপিত হয় যারা পশ্চিম জার্মানি থেকে এখানে আসে এবং এই অঞ্চলে এটি সব থেকে প্রাচীনতম ভবন হচ্ছে | এটি লাদাখি শিশুদের শিক্ষা কেন্দ্রে হয়ে দাড়িয়েছে এবং এখানে গীর্জা দ্বারা স্কুল চালানো হয় | যদিও গীর্জাটি ১৩১ বছর পুরনো , কিন্তু এতে আধুনিকতার ছোয়া আছে |

 


Leave a Comment

Required fields are marked *