Insights into simplifying train travel

সংক্ষেপে সীতা বেঙ্গা গুহার ইতিহাস

Blog-Post-For_-Sita-Benga-caves

ছত্তিশগড়ের সমৃদ্ধ ইতিহাস প্রায় দশ হাজার বছর পুরনো এবং এই রাজ্যের ইতিহাসের একটি মূল্যবান মণি হচ্ছে সীতা বেঙ্গা গুহা যা নিজেই একটি বিস্ময়কর ব্যাপার হচ্ছে | যোগীমারা গুফার সঙ্গে এটি ২৩০০ বছরের বিশ্বের প্রাচীনতম নাটকের মঞ্চ হচ্ছে | ছত্তিশগড়ের সুরগুজা জেলার অম্বিকাপুরের রামগড় পাহাড়ে স্থিত এই নিভৃত স্থানটি ১৮৭৫ সাল থেকে ইউরোপীয়দের জানা ছিল | কিংবদন্তী অনুসারে এই গুহা গুলিতে রাম , সীতা এবং লক্ষণ থেকে ছিলেন আর তাই এটি সীতা বেঙ্গা বা  সীতার বাসস্থান  হিসাবে জানা যায় | সীতা বেঙ্গা আসলে একটা ছোট্ট হল হচ্ছে যার বাইরে পাহাড়ের উপর মঞ্চ উত্কীর্ণ করা হয়েছে | অর্ধবৃত্তাকার উপত্যকা সঙ্গে এই দুটি গুহা একটি অ্যামি্পথিয়েটারের মত দেকে যা প্রাচীন গ্রিক থিয়েটারের মত দেখতে | অর্ধচন্দ্রাকার আকৃতিতে শিলা কেটে বেঞ্চ বানানো হয়েছে যাতে ৫০ জন বসতে পারে |

এই গুফা ১৪ মি লম্বা এবং ৫ মি চওরা হচ্ছে এবং এর ১.৮ মি উচ্চতা এই বিশ্বাসকে প্রতিফলিত করে যে এই জায়গাটি বসন্তের পূর্ণিমা রাতে খুব জনপ্রিয় ছিল যখন কামদেবের(ভালোবাসার দেবতা) উত্সব এখানে সংঘটিত হত | মানুষের পদচিহ্নের, প্রবেশদ্বারে মেঝেতে কাটা দুটি গর্ত, এই জল্পনার জন্ম দেয় যে এখানে অনেক মানুষ এবং কবি উৎসব উদযাপন করার জন্য একত্র হতেন | এদিকে মনে করা হয় যে কালিদাস এর কাছাকাছি কোথাউ মেঘদূত  লিখেছিলেন |

পর্যটন টিপ – আপনাকে রায়গড় রেলওয়ে স্টেশনে নামতে হবে এবং সেখান থেকে আপনি ট্যাক্সি বা বাস নিতে পারেন সীতা বেঙ্গা / যোগীমারা গুফার জন্য |


Leave a Comment

Required fields are marked *