Insights into simplifying train travel

এই বার গরম কে অন্য ভাবে হারান : শিলং

সম্ভবত সৌন্দর্য এবং প্রকৃতির সুখের প্রাণঘাতী সংমিশ্রনের একটি বিরল উদাহরণ হচ্ছে মেঘালয়ে অবস্থিত শিলং | এখানকার উঁচু খাড়া পাহাড় , গভীর ঘাট , মেঘ বয়ে যায় , জলপ্রপাত আপনাকে চমকিত করে আর এখানকার শ্যামলিমা ও সংস্কৃতি আপনার আত্মা কে সমৃদ্ধ করে | হালেই শিলং কে “ভারতের জনপ্রিয় হিল স্টেশন” খেতাবে ভূষিত করা হয়েছে এবং এখানকার প্রাকৃতিক দৃশ্য “প্রাচ্যের স্কটল্যান্ড” এই নাম সার্থক করে|

আসুন এখানকার কিচ্ছু আলাদা এবং অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থানের সম্বন্ধে জানি যা আপনি এখানে যখন গরমের সময় আসবেন তা কোনো মতে ছাড়া যাবে না –

Umium Lake

  •  উমিয়াম ঝিল – উমিয়াম ঝিল যা বারাপানি (বড় জল) হিসাবে বিখ্যাত একটি একটি নয়নাভিরাম জায়গা হচ্ছে যেখান থেকে অপরূপ সুন্দর জায়গা দেখা যায় | শিলংয়ের ১৫কিমি উত্তরে পাহাড়ের মাঝে স্থিত এই ঝিল তৈরী হয়েছে ১৯৬০ এ উমিয়াম নদীতে বাঁধ তৈরী হবার পর| এই বাঁধ উত্তর পূর্ব ভারতের প্রথম হাইডেল বিদ্যুত প্রকল্প হচ্ছে |

    এই ঝিল ওয়াটার স্পোর্টসের জন্য জনপ্রিয় হচ্ছে এবং এখানে কায়াকিং , ওয়াটার সাইক্লিং / স্কুটিং এবং বোটিং এর সুবিধা পাওয়া যায় |এর চারপাশে আছে সবুজে ঘেরা পাহাড় এবং উপত্যকা | সবুজ আর নীলের এই মিশ্রন একদম মুগ্ধ করে দেয় | এখানে একটি রেস্তোরা আছে যেখানে স্থানীয় খাবার পাওয়া যায় এবং রাতে থাকা যায় |

Root Bridge

  •  

    রুট ব্রিজ – মেঘের রাজ্য মেঘালয় যা পবিত্র জঙ্গলের স্থান হচ্ছে , সেখানে আছে সব থেকে পরিষ্কার এবং সব থেকে ভেজা গ্রাম , সব থেকে লম্বা গুফা এবং জীবন্ত রুট এর সেতু | শিলংয়ের জঙ্গলে যেখানে সেতু নেই সেখানে এদের চাষ করা হয় | এই সেতু গুলি ৫০ জন লোকের ওজন সইতে পারে এবং যেহেতু এই সেতু গুলি জীবন্ত কিন্তু ধাক্কা মারে না তাই সময়ের সঙ্গে এদের শক্তি বারে | কিছু কিছু রুট সেতু একশ বছর পুরনো| ডাবল – ডেকার রুট সেতু মেঘালয়ের গর্ব | শিলং থেকে ৯০ কিমি দুরে স্থিত রিওয়াই গ্রাম, মাওয়লিননং এ আপনি অনেক জীবন্ত রুট সেতু দেখতে পাবেন| মাওয়লিননং এশিয়ার সব থেকে পরিষ্কার গ্রাম হচ্ছে |

    Garo Hills

  • গারো পাহাড়ের বন্য সৌন্দর্য – আপনার শিলংয়ের যাত্রাতে সব থেকে বড় উদ্ঘাটন হবে গারো পাহাড় | জীব-বৈচিত্র্য ধনী এবং অত্যন্ত সুন্দর এই পাহাড়ে আছে উদ্দাম সিমসং নদী যা এই পাহাড়ের মাঝ দিয়ে বয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে যেখানে এর নতুন নামকরণ হয় সোমেশ্বরী | এই নদীর দু পারে আছে আদিম বন ও পাহাড় | মেঘ এর উপত্তকাতে ঘুরে বেরায় এবং যখন এখানে বৃষ্টি হয় তা মুশল ধারে হয় |

Mawphlang Sacred Forest

  • মওফ্ল্যাঙ পবিত্র জঙ্গল – মওফ্ল্যাঙ এর পবিত্র জঙ্গল যা স্থানীয় লোকেরা পবিত্র মনে করে এবং এর রক্ষা খুব যত্নের সঙ্গে করে এবং অনেক যাত্রীরা এখানে আসেন | উদ্ভিদ ও প্রাণিকুলে এটি সমৃদ্ধ হচ্ছে এবং এখানে বিরল ভেষজ উদ্ভিদ পাওয়া যায় , রুদ্রাক্ষ গাছ এবং পাইন গাছ এখানে আছে | স্থায়ী শিলা ও পাথরের গোষ্ঠীর মাঝে স্থানীয় লোকেরা তাদের আচার-অনুষ্ঠান পালন করে এবং ধ্যান করেন | বন সংরক্ষনের এই অনন্য এবং নিখুঁত উদাহরণ কে নিশ্চয় মিস করা যায় না |

    Shillong Chamber Choir

  • শিলং চেম্বার কয়ার – শিলং চেম্বার কয়ার মেঘালয়ের অসাধারণ খোঁজ এবং গর্ব হচ্ছে এবং তা শিলং এ স্থিত হচ্ছে | ২০০১ এ স্থাপিত এই প্রতিভাবান দলটি তাদের সঙ্গীতের দক্ষতার মাধ্যমে শুধু ভারতে নয় আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ও সারা ফেলেছে | তাহলে আপনি যখন শিলং যাবেন তাহলে সুযোগ পেলে সাংস্কৃতিক ঐক্যের এই নিখুঁত উদাহরণ কে দেখতে ভুলবেন না |

Bara Bazar

  • লিউ ডহ বাজার (বড় বাজার) – উত্তর পূর্বের আকর্ষনীয় স্থানীয় বাজারের মধ্যে হছে এটি | হাজার হাজার খাসি লোকেরা তাদের গ্রাম এখানে আসে তাদের জিনিস বিক্রি করার জন্য যেমন উপজাতীয় ঝুড়ি থেকে শুরু করে মাছ ধরার ফাঁদ এবং খাওয়ার যোগ্য ব্যাঙ |এখানকার জিনিসগুলি একদম টাটকা, অর্গানিক এবং দেখতে অপূর্ব | সবজি গুলি বিভিন্ন রংয়ে উপলব্ধ যা সুস্বাস্থ্যে ভরা ; মাছ পছন্দ করতে করতে আপনি থকে যাবেন, একই রকম অবস্থা মাংস আর মুরগির জায়গায় | এই বাজারের সব থেকে বিশেষ বিষয় হচ্ছে যে শিলংয়ের এই শুধুমাত্র নারী পরিচালিত খাশি বাজারে সব জিনিস খুব সস্তা | আপনি এখানে অনেক স্থানীয় বিক্রেতাদের পাবেন যারা আচার, রসুন, মসলা ও মাছ শহরের রাস্তা তে বিক্রি করে যা এখানকার মূল স্বাদে এবং দর্শনীয় দ্রষ্টব্য কে দর্শায় |


Leave a Comment

Required fields are marked *